Bangladesh High Commission of Singapore urges upholding spirit of historic Language Movement

By SM Mehedi Hasan

Amar Ekushey and International Mother Language Day at Bangladesh High Commission Singapore

Singapore, Feb 21 - Amar Ekushey and International Mother Language Day was observed by Bangladesh High Commission Singapore with due solemnity and in a befitting manner. The program was held at the prestigious Singapore Polytechnic Institute Auditorium where attended by over 400 invited guests.

Kolkata - Dhaka Cycle Rally Marks International Mother Language Day

The day's program started with hoisting of the National Flags at half-mast in presence of the officials as well as the members of Bangladesh community in Singapore.

Messages issued by the President, Prime Minister, Foreign Minister and the State Minister for Foreign Affairs on the occasion were read out.

Amar Ekushey and International Mother Language Day at Bangladesh High Commission Singapore

A one-minute silence was also observed as a mark of profound respect to the martyrs of 1952 Language Movement, followed by recitation from the Holy Quran.

Special munajats were also offered seeking eternal peace of the departed souls of the martyrs and for the continued peace, progress and prosperity of the country.

Amar Ekushey and International Mother Language Day at Bangladesh High Commission Singapore

The highlight of the day's program was a discussion program on Amar Ekushey. The program was attended by professionals, academics, elites, officials and expatriate Bangladeshis.

The key note speaker at the discussions Professor Fakrul  Alam of Dhaka University gave the background  and significance of the Language Movement leading to the observance of Martyrs' Day on February 21.  Professor Alam mentioned about the heroic role of the Father of the Nation Bangabandhu Sheikh Mujibur Rahman who always championed the rights and aspirations of the Bengali people.

Amar Ekushey and International Mother Language Day at Bangladesh High Commission Singapore

He mentioned about the clarion call of Bangabandhu to the Bengali people to break free from the shackles of cultural subjugation and domination imposed by the west Pakistani rulers. Professor Alam said that it was Bangabandhu’s declaration of independence that inspired us and led us to fight the glorious war of liberation and ultimately achieve victory on 16 December, 1971.

Amar Ekushey and International Mother Language Day at Bangladesh High Commission Singapore

In his speech Professor Alam recalled the contribution of those dedicated people of Bangladesh who under the guidance and inspiration of Prime Minister Sheikh Hasina launched an initiative that ultimately led to the declaration of this day as the International Mother Language Day by UNESCO in 1999.

In his speech, Bangladesh High Commissioner to Singapore paid rich tributes to the language martyrs. He recalled the contribution of the Father of the Nation Bangabandhu Sheikh Mijibur Rahman in all successive movements for restoration of the democratic rights of the Bengali people from 1952 to 1971.

Amar Ekushey and International Mother Language Day at Bangladesh High Commission Singapore

The High Commissioner also urged the Bangladeshis living abroad to uphold the spirit of the historic Language Movement, help spread the richness of the nation's culture and traditions in foreign lands and work hard to further brighten the country's image inspired by the spirit of Ekushey.

The attraction of the event was a cultural event that comprised of songs commemorating immortal Ekushey. Children from different schools learning Bengali dressed in colorful attires presented dance and poetry recitations that kept the audience enthralled and spellbound. Members of the civil society, academia, media and people from all walks of life also attended the program.

Amar Ekushey and International Mother Language Day at Bangladesh High Commission Singapore

For more info: Md Faruk Hossain, Counselor and Head of Chancery, Bangladesh High Commission Singapore, Phone: +65 866 007 04; Email: faruk.hossain@mofa.gov.bd

The news release is repeated below in unicode Bengali font.

সিঙ্গাপুর বাংলাদেশ হাইকমিশনে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন

যথাযোগ্য ভাবগম্ভীর অনুষ্ঠানাদির মধ্য দিয়ে সিঙ্গাপুর বাংলাদেশ হাইকমিশনে আজ অমর একুশে এবং আন্তর্জাতিক ভাষা দিবস পালিত হয়। চার শতাধিক আমন্ত্রিত অতিথির উপস্থিতিতে অভিজাত সিঙ্গাপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়।

হাইকমিশনের কর্মকর্তাগণ এবং সিঙ্গাপুরে প্রবাসী বাংলাদেশি কম্যুনিটির উপস্থিতিতে জাতীয় পতাকা পতাকা অর্ধ-নমিত উত্তোলনের মধ্য দিয়ে দিনের কার্যক্রম শুরু হয়। এরপর মহামান্য রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, মাননীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং মাননীয় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর প্রদত্ত বাণী পাঠ করা হয়।

পবিত্র কোরান তেলাওয়াতের পর ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে বীর শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এরপর শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনার পাশাপাশি বাংলাদেশের অব্যাহত শান্তি, প্রগতি ও অগ্রগতির লক্ষ্যে বিশেষ মোনাজাত আদায় করা হয়।

দিনভর আয়োজনের উল্লেখযোগ্য অংশের মধ্যে ছিল অমর একুশে শীর্ষক আলোচনা। শিক্ষাবিদ, গুণীজন, পেশাজীবী, গণ্যমান্যজনের পাশাপাশি প্রবাসী বাংলাদেশিরাও এতে অংশ নেন।

আলোচনায় মুখ্য প্রবন্ধ উপস্থাপনকারী ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের অধ্যাপক ফকরুল ইসলাম ২১ ফেব্রæয়ারি দিনটিকে শহীদ দিবস হিসেবে পালনের প্রেক্ষিত হিসাবে ভাষা আন্দোলনের প্রেক্ষাপট এবং তাৎপর্য ব্যাখ্যা করেন। অধ্যাপক আলম জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বীরত্বব্যঞ্জক ভ‚মিকার কথা উল্লেখ করে বলেন, বাঙালি জাতির আশা-আকাঙ্খার প্রশ্নে তিনি ছিলেন এক অবিচল যোদ্ধা। পশ্চিম পাকিস্তানি শাসকের অর্থনৈতিক অত্যাচার ও সাংস্কৃতিক নিপীড়নের বিরুদ্ধে জেগে ওঠার জন্য বাঙালি জাতির উদ্দেশে আহŸান জানান তিনি। স্বাধীনতা সংগ্রামের জন্য বঙ্গবন্ধুর ডাক শুনেই আমরা ঝাঁপিয়ে পড়েছিলাম মহান মুক্তিযুদ্ধে। ছিনিয়ে আনতে পেরেছি সোনালি স্বাধীনতা। অধ্যাপক আলম একই সঙ্গে উল্লেখ করেন ১৯৯৯ সালে সেই নিবেদিতপ্রাণ মানুষগুলোর অবদানের কথা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ও প্রেরণায় যাদের উদ্যোগে ইউনেসকো এই দিনটিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসস হিসাবে ঘোষণা করে।

সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশের হাই কমিশনার তার বক্তব্যে ভাষাশহীদদের উদ্দেশ্যে গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। তিনি বলেন, ১৯৫২ সালে এ আন্দোলনের পর ১৯৭১ সাল অবধি বাঙালির গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠার প্রতিটি লড়াইয়ের নেতৃত্ব দিয়েছেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। হাই কমিশনার একইসঙ্গে ঐতিহাসিক ভাষা আন্দোলনের চেতনাকে সমুন্নত রাখা, জাতীয় সংস্কৃতির গৌরব বিদেশের মাটিতে আরও বেশি ছড়িয়ে দেয়া, একুশের প্রেরণায় দেশের ভাবমূর্তি আরও উজ্জ্বল করতে কঠোর পরিশ্রম অব্যাহত রাখার জন্য প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রতি আহŸান জানান।

আয়োজনের প্রধান আকর্ষণ ছিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এখানে অমর একুশের উদ্দেশ্যে নিবেদিত অনেকগুলো গান পরিবেশন করেন শিল্পীরা। বাংলা স্কুলের শিক্ষার্থী শিশুরা বর্ণাঢ্য পোশাকে দেশীয় নৃত্য পরিবেশন করে, বাংলায় কবিতা আবৃত্তি করে দর্শকশ্রোতাদের তাক লাগিয়ে দেন।

সিঙ্গাপুরের সুশীল সমাজের সদস্যগণের পাশাপাশি গণমাধ্যম প্রতিনিধি ও শিক্ষাবিদগণ আয়োজনে যোগ দেন। এ ছাড়া সর্বস্তরের মানুষের মিলনমেলা হয়ে ওঠে অমর একুশে’র এ আয়োজন।

বিস্তারিত জানতে: মো: ফারুক হোসেন, কাউন্সেলর ও হেড অব চ্যান্সারি, বাংলাদেশ হাইকমিশন সিঙ্গাপুর, ফোন: ০০৬৫ ৮৬৬ ০০৭ ০৪; ইমেইল: faruk.hossain@mofa.gov.bd