প্রতিহিংসা (Protihingsha) Bengali Poem by Rasel Raju | WBRi Online Bengali Magazine

Rasel Raju"Protihingsha" (Revenge) is a Bengali poem (Bangla Kobita) by Rasel Raju in unicode Bangla font published in WBRi Bengali Online Magazine section. You can send your creative writing to submissions@washingtonbanglaradio.com for consideration towards publication.

Rasel Raju is a student of English Literature at Shahjalal University of Science and Technology in Sylhet, Bangladesh. Born at Juri in Moulvibazar, Rasel describes himself as a very simple person coming from a poverty striken family - the youngest child of aged parents. Before SUST, Rasel studied at Hossain Ali High School in his village and later at Taiabun Nessa Khanam Academy Degree College. Rasel likes to write poems both in Bengali and English. He also writes essay and stories, and would like to write novel. Rasel Raju can be reached at rajurasels [at] gmail [dot] com.


প্রতিহিংসা

রাসেল রাজু



জীবনের পথে হয় যারা আগুয়ান,
তাদের করি আমি হয়রাণ।
পরাজয় মানে বিড়ম্বনা, অসহনীয় যন্ত্রণা
মানুষ মাঝে ছড়াই পরাজয় মন্ত্রণা।
অসহনীয় যন্ত্রণায় মোর বসবাস,
আমি সহসা ঘটাই সর্বনাশ।
দুনিয়ার হেথা-হোথা কোথা নেই মোর বাস?
মোর আগমনে নিহিত লোকের দীর্ঘশ্বাস।
যে এগিয়ে যায় তার দ্বার করি রুদ্ধ,
ন্যায়ের সনে মোর প্রতিনিয়ত যুদ্ধ।

আমি উন্মাদ, উন্মাদনাই আমার নেশা,
পথ যেতে যেতে আমি ছড়াই হতাশা।
আমি চির যুবক; আদায় করিনাকো কারো হক,
আমি ক্ষুধার রাজ্যে দুর্ভিক্ষ, আমি অন্যায়
আমি যুদ্ধের নির্মম ধ্বংস, আমি দুখিনি মায়ের শুন্য হতাশ অগ্নি চোখ।
আমি চির হতাশের হতাশার দাবানল, আমি মীর জাফর
আমি বোশেখের অগ্নিঝড়।
আমি অন্যায়, আমি দুর্নীতি পদদলিত করি সব নীতি,
আমি আজরাইল, সম্মুখে যারে পাই তার করি ক্ষতি,
আমি অগ্রযাত্রার বড় বাঁধা, রুদ্ধ করি সব গতি।

জীবন নই আমি, আমি ধূ-ধূ মরুভূমি,
পুরাতন জীর্ণ-শীর্ণরে আমি বরে নিই চুমি।
আমি শয়তান, আমি উন্মাতাল, আমি উন্মত্ত
আমি পতিতা পল্লিতে ঘুরি গড়ি জীবনের বৃত্ত।
আমি নিশুত রাত্রির প্রগাঢ় আঁধার, আমি দুর্গম অরণ্যে ব্যঘ্রের উল্লাস;
আমি মৃত্যু, আমি কবরের নিস্তব্দতা; আমি বারিধির উষ্ণ জলোচ্ছ্বাস।
আমি ভয়ংকর, আমার ভয়ে কম্পমান বিশ্ব
আমি ধনের রাজারে করি নিঃস্ব।
আমি চৈত্রের মেঘহীন একখণ্ড আসমান,
পৃথিবীতে রচি শুষ্কতার আইন।

আমি হরতাল, ভেঙ্গে ভস্ম করি সব তাল
আমি বিক্ষোভ, শান্তিরে দূরে ঠেলি পাড়ি গাল।
আমি লোভীর লোলুপ দৃষ্টি
সম্পদ লভিতে ঝরাই রক্তের বৃষ্টি।
আমি চির অশান্তি সইতে পারিনাক কভু শান্তি,
আমি সৃষ্টিতে ঘটাই বিঘ্ন; লেলিয়ে দিই সহস্র ভ্রান্তি।
আমি বজ্রপাত; বজ্রাঘাতে ঘটাই সৃষ্টিশীলের নিপাত,
আমি সইতে পারিনা আলো, মেঘের আঁধারে ঢেকে দিই সব প্রভাত।
আমি মদ, আমি মাতাল, পৃথিবী মোর একার
সহস্র আঘাতে সাকারকে করি নিরাকার।

আমি রাজনৈতিক দলের হুঙ্কার
নীতিতে নিহিত মোর হাহাকার।
আমি রাজনীতির দাবানলে নাশিব বিশ্ব,
নিঃস্বকে বরে নিব করে আরও নিঃস্ব।
আমি বিরোধী দলের বিরোধিতার পতাকা,
রহিত করব সমজোতার বলাকা।
আমি সরকার দলের নিপীড়নের চাকা,
নির্যাতিতের নিনাদ বিভোর আসমান একা।
আমি স্বপ্ন ভঙ্গের বেদনা দেশ-মাতৃকার,
আমি সর্বহারার সব হারানো হাহাকার।

আমি অপার্থিব বলে বলীয়ান এক নরপিশাচের হুঙ্কার,
রক্ত-খেলায় মত্ত কিছু লোকের আমিই অহংকার।
আমি পবিত্র মনে অপবিত্রতার বানী,
আমি মোক্ষম সুযোগে মানব মনে আঘাত হানা তরবারি।
আমি সতত মানবতারে করি বধ,
আমি নারীর যৌবনে লোক্কায়িত শয়তানি মদ।
আমি শয়তান, আমি ভাসমান মেঘের কণা,
মুহূর্তে নাবি আমি পৃথিবী মাঝে মেলে আপন ফণা।
আমি ঝড়, আমি জলোচ্ছ্বাস...
ধ্বংস মাঝে আমারি পরম উল্লাস!

সতত রব আমি মানব মাঝে; রুখিতে পারিবে না মোরে কেউ
মানুষে মানুষে মরছে লড়ে তাই দেখে মনে লাগে মোর ঢেউ।
আস্তাহীনতার দিন হবেনাকো কভু লয়,
উন্মাদ আমি উন্মাদ সব করেছি জয়।

Enhanced by Zemanta